সেরাটা দেওয়ার আশায় অধিনায়ক

0
43

 

গত আসরে নিজের জাদুটা সেভাবে দেখাতে না পারলেও জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ককে দলে ভেড়ানোর জন্য একটা কাড়াকাড়ি থাকবেই। সেই কাড়াকাড়ি জমে ওঠার আগেই মাশরাফিকে দলে ভিড়িয়ে ফেলেছে রংপুর রাইডার্স। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ছেড়ে দুই মৌসুম পর এবার নতুন জার্সি গায়ে লড়বেন তিনি বিপিএলে।

আগে থেকেই খবরটা চাউর হয়ে গেলেও গতকাল রংপুর আনুষ্ঠানিকভাবে মাশরাফির সাথে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান করলো। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে রংপুরের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন দলটির মালিক, সোহানা স্পোর্টসের এমডি সাফওয়ান সোবহান, রংপুর রাইডার্সের প্রধান নির্বাহী ইশতিয়াক সাদিক। অনুষ্ঠানে মাশরাফি খুব সন্তোষ প্রকাশ করে বললেন, মৌসুম শুরুর ঢের আগেই তারা ভালো একটা সেটআপ দলের জন্য দাঁড় করিয়ে ফেলতে পেরেছেন, ‘এখানে ফাহিম স্যার (নাজমুল আবেদীন ফাহিম) আছেন। আমরা সমস্যায় পড়লেই স্যারের সঙ্গে আলোচনা হয়। এবার সব সময় আমরা তাকে পাবো। রফিক ভাই (মোহাম্মদ রফিক) আমাদের সঙ্গে যোগ দিবেন। মর্ডান ক্রিকেটের অন্যতম সেরা কোচ টম মুডিও আসছেন।’

এই থিংক ট্যাংক নিয়ে মাশরাফি স্বাভাবিকভাবেই শিরোপার আশা শুনিয়ে দিতে পারতেন। কিন্তু শিরোপার কথা বলেন না তিনি। তবে এটা বললেন যে, খুব ভালো একটা টুর্নামেন্ট কাটাতে চাইবেন তারা, ‘আশা করছি ভালো একটি সফর যাবে রংপুর রাইডার্সের হয়ে। মাঠের খেলায় আমরা চেষ্টা করব সেরা খেলা উপহার দিতে। যারা নির্দিষ্ট দিনে ভালো খেলবে তারা জিতবে। ম্যাক্সিমাম দিন যেন আমরা ভালো খেলতে পারি সেই চেষ্টা করব।’

এই ধরনের ফ্রাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে একটা বড় ব্যাপার হলো মালিকদের সাথে ঠিকমতো বোঝাপড়া হওয়া। মাশরাফি বলছিলেন, রংপুর দলের মালিকদের সাথে ইতিমধ্যে তার একটা ভালো বোঝাপড়া হয়েছে, ‘দলটির সিইওর সঙ্গে শুরুর থেকে কথা হচ্ছিল। তাদের পরিকল্পনায় সার্বিকভাবে সন্তুষ্ট হওয়ার পরই রংপুরে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেই। এখানে কোচিং স্টাফ কেমন হবে, কেমন পেশাদারিত্ব থাকবে এগুলো নিয়ে আলোচনা করেছি। তারা যে পরিকল্পনা করেছে, এ টুর্নামেন্টের জন্য যেটা দরকার সেটা করেছে। আর সবকিছু ভালো লাগায় এখানে যুক্ত হয়েছি।’

কিছুদিন আগেই অবসর নিয়েছেন আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে। তার সামনে এই খেলায় আর কোনো ভবিষ্যত্ নেই। তাই মাশরাফি বললেন, তিনি চেয়েছিলেন, তাকে বাদ দিয়ে অন্য কাউকে আইকন করার জন্য, ‘আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে আমার কোনো ক্যারিয়ার নেই। যেহেতু আমি টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছি সেজন্য আমি চেয়েছি আমাদেরই কোনো ক্রিকেটারকে প্রমোট করতে। যার ভবিষ্যতে আছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। আমি তাকে বুস্ট আপ করার জন্য এমনটা বিসিবিকে বলেছি। বাকিটা বিসিবির উপর নির্ভর করছে।’

শেষ পর্যন্ত অবশ্য বিসিবি আইকন তালিকা থেকে মাশরাফিকে সরায়নি। তাই রংপুরে সেই ভূমিকাতেই লড়বেন। আর আশার কথা শোনালেন, দেশি-বিদেশি খেলোয়াড় সংখ্যা যাই হোক, তারা সেরাটাই উপহার দেওয়ার চেষ্টা করবেন, ‘আমরা আমাদের সাধ্যমত সকল চেষ্টা করব। আমাদের মাঠের সেরা পারফরম্যান্স উপহার দেয়ার জন্য যা করার প্রয়োজন সেটা করব। আপনারা দেখবেন লোকাল ক্রিকেটার যে দলে সব থেকে বেশি ভালো খেলে তাদের জয়ের সম্ভাবনা বেশি থাকে। এবার পাঁচজন হলে সিনারিওটা পরিবর্তন হতে পারে। লোকাল খেলোয়াড়দের কন্ট্রিবিউশন কেমন হবে সেটাও বুঝতে পারা কঠিন। আমার বিশ্বাস লোকাল খেলোয়াড় যারা আছে তারা ভালো খেললে অবশ্যই সুযোগ থাকবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here